২৩শে এপ্রিল থেকে ভোটার তালিকা হালনাগাদ।

0
315

OURBANGLANEWS DESK।

২৩ এপ্রিল থেকে নির্বাচন কমিশন (ইসি) কাজ শুরু করবে ভোটার তালিকা হালনাগাদের।

এবার বাড়ি বাড়ি গিয়ে ইসি ভোটার তথ্য সংগ্রহ করার চিন্তাভাবনা করছে একসঙ্গে চার বছরের।

এই সময়ের মধ্যে যাঁদের বয়স ১৮ হবে, প্রস্তাব অনুযায়ী তাদের অন্তর্ভুক্ত করা হবে ভোটার তালিকায়।

০৮ এপ্রিল সোমবার এ বিষয়ে প্রাথমিক আলোচনা হয় ইসির বৈঠকে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে ১০ এপ্রিল ইসির পরের বৈঠকে।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় এখন থেকে সব ধরনের স্থানীয় সরকার নির্বাচনের ভোট ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) গ্রহণ করার।

কে এম নূরুল হুদা প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি)এর সভাপতিত্বে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে।

বৈঠক শেষে মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক জানান এই তথ্য।

তিনি বলেন, প্রতিবারই জনবল নিয়োগ দিতে হয় প্রতিবছর হালনাগাদ করতে গেলে। তা ছাড়া ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা কঠিন কাজ হয়ে যায় কোনো বছর গুরুত্বপূর্ণ কোনো নির্বাচন থাকলে সে বছর।

ইসি সে কারণে যাঁদের বয়স ২০১৮ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে ১৮ হয়েছে বা হবে, তাঁদের তথ্য সংগ্রহ করবে।

এঁদের মধ্যে তাঁদের ভোটার করে নেওয়া হবে, যাঁরা এখনই ভোটার হওয়ার যোগ্য। বাকিদের মধ্যে যাদের বয়স যখন ১৮ হবে, তাঁদের ভোটার করে নেওয়া হবে তখন।

মহাপরিচালক স্থানীয় নির্বাচনে ইভিএমের ব্যবহার সম্পর্কে বলেন, ইসির কাছে এখন যেহেতু পর্যাপ্ত সংখ্যক ইভিএম আছে, তাই সিদ্ধান্ত হয়েছে সব ধরনের স্থানীয় নির্বাচন এখন থেকে ইভিএমে গ্রহণ করার।

ইসি সচিবালয়ের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৭ সালে সর্বশেষ ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হয়।

২০১৮ সালে হালনাগাদের কাজ করা সম্ভব হয়নি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতিকে কেন্দ্র করে। বর্তমানে প্রায় ১০ কোটি ৪২ লাখ দেশে মোট ভোটারের সংখ্যা।

জানা যায় কমিশন সূত্রে, ২০২০ সালের নতুন ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবেন যাঁদের জন্ম ২০০১ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে।

এ ছাড়া তাঁদের তথ্যও সংগ্রহ করা হবে ২০০১ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০০৪ সালের ১ জানুয়ারির মধ্যে যাঁদের জন্ম।

আগামী ১৩ মে পর্যন্ত চলবে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদের তথ্য সংগ্রহের কাজ।

নতুন ঘোষিত ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনে আগামী ৫ মে ভোট গ্রহণ করা হবে। এই সিটিতে রয়েছে ৩৩টি সাধারণ ওয়ার্ড এবং নারীদের জন্য সংরক্ষিত ১১টি ওয়ার্ড।

এসব ওয়ার্ডের জন্য ১৩০ নির্ধারিত ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা। এবারের ইভিএম ব্যবহার করবে নির্বাচনে ইসি সব কেন্দ্রে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে