স্থগিত থাকছে পাঁচ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলার কার্যক্রম।

0
207

OURBANGLANEWS DESK।

দোহার থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে নবাবগঞ্জের ওসির দুর্নীতির বিষয়ে রিপোর্ট প্রকাশের কারণে একটি জাতীয় দৈনিকের পাঁচ জন প্রতিনিধির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছিল।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. পলাশ মিয়া ২০ ফেব্রুয়ারি মামলাটি করেছিলেন।

তবে ২৭ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রায় দিয়েছিলেন।

২০ মে সোমবার রাষ্ট্রপক্ষ আপিলের অনুমতির আবেদন করলেও আদালত তা খারিজ করে মামলার কার্যক্রম স্থগিতের পক্ষে রায় দিয়েছেন।

সাংবাদিকদের পক্ষের আইনজীবী বাসেত মজুমদার শুনানির সময় আদালতকে বলেন, যে মামলাটি করা হয়েছে তা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পড়ে না।

কারণ যে রিপোর্টটি হয়েছে, কোনও ডিভাইসে তা প্রকাশিত হয়নি।

এখানে পত্রিকায় ওসির বিরুদ্ধে দুর্নীতির রিপোর্ট হয়েছে।

সেটি তদন্ত না করে পত্রিকার সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে উল্টো মামলা করা হয়েছে, যা আইন সংগত হয়নি, মামলাটি বাতিলযোগ্য।

যার বিরুদ্ধে রিপোর্ট হয়েছে তিনি মামলা করেননি, ভাড়া করে অন্যকে মামলার বাদী করা হয়েছে।

আদালত উভয়পক্ষের শুনানি শেষে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনটি খারিজ করে।

প্রসঙ্গত, দৈনিক যুগান্তরে ঢাকা নবাবগঞ্জের ওসি মোস্তফা কামালের অবৈধ সম্পদ অর্জন নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনের জেরে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পত্রিকাটির পাঁচ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়।

নবাবগঞ্জ প্রতিনিধি আজহারুল হক, কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফর, আশুলিয়া প্রতিনিধি মো. মেহেদী হাসান মিঠু, ধামরাই প্রতিনিধি শামীম খান এবং গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি এস এম হুমায়ুন কবীরকে আসামি করা হয়।

কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফর মামলার কার্যক্রম স্থগিত এবং জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন।

২৭ ফেব্রয়ারি শুনানি শেষে আবু জাফরকে ছয় মাসের জামিন মঞ্জুরের পাশাপাশি হাইকোর্ট মামলার সব কার্যক্রম স্থগিত করে রুল জারি করেন।

রাষ্ট্রপক্ষ চেম্বার আদালতে হাইকোর্টের ওই আদেশ স্থগিত চাইলে চেম্বার বিচারপতি কোনও আদেশ না দিয়ে পাঠিয়ে দেন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য।

রাষ্ট্রপক্ষ এরই মধ্যে হাইকোর্টের ওই আদেশের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল দায়ের করে।