শুরু হলো ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ৫ম আসর।

0
236

তামজিদ হোসেন, OURBANGLANEWS DESK।

উৎসব মুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে শুরু হলো ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচিত্র উৎসবের ৫ম আসর।
শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) স্থায়ী ক্যাম্পাসে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই অনুষ্ঠান চলবে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।
অনুষ্ঠানের উদ্ভোধনী আসর শুরু হয় সকাল ১১ টায়। উদ্ভোধনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চিত্র পরিচালক এবং চিত্র নাট্যকার মতিন রহমান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ইউল্যাবের উপাচার্য অধ্যাপক এইচ.এম জহিরুল হক এবং গণমাধ্যম এবং সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক জুড উইলিয়াম হেনিলো।
উদ্ভোধনী বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বলেন, ইউল্যাবে এমএসজে ডিপার্টমেন্টকে ধন্যবাদ এমন আন্তর্জাতিক মানের উদ্দ্যোগ নেয়ার জন্য। আশা করি এই আয়োজন আরো বড় হবে এবং অনেক দূর এগিয়ে যাবে।

সিনেমাস্কোপকে ধন্যবাদ জানিয়ে সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান, অধ্যাপক জুড উইলিয়াম হেনিলো বলেন, ‘সিনেমা তৈরির জন্য বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করা যায়। যেগুলোর অনেক কিছু সম্পর্কে আমরা জানি না। সেগুলো অনেক খরচসাপেক্ষ।

কিন্তু মোবাইল ফোনেও যে সিনেমা তৈরি করা যায় এবং তাতে খরচ অনেক কম- সেটি এই উৎসবের মাধ্যমে জানা যাচ্ছে। সিনেমাস্কোপ এমন একটি সংগঠন যেটা মোবাইল ফোনের এ উপকারিতা সবার সামনে নতুনভাবে তুলে ধরে। শুভকামনা তাদের জন্য।’
মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের এ আয়োজন মূলত নতুন প্রজন্ম, নতুন প্রযুক্তি ও নতুন যোগাযোগের মেলবন্ধন ঘটানোর জন্য। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক মতিন রহমান বলেন, ‘সিনেমাস্কোপের সঙ্গে আমার বন্ধুত্ব অনেক দিনের। এ উৎসব আরও দীর্ঘদিন চলবে। এর ব্যাপ্তি বিশ্বময় ছড়িয়ে পড়ুক- এ আশাই করি।’
আয়োজকরা জানান, ‘এবারের আসরে বিশ্বের ৩৪টি দেশ থেকে সর্বমোট ৯৫টি চলচ্চিত্র জমা পড়ে। বিচারকমণ্ডলী ‘কম্পিটিশন’ বিভাগে জমা পড়া ২৮টি চলচ্চিত্র থেকে ১০টি, ‘ওয়ান মিনিট’ ফিল্ম বিভাগের তিনটি চলচ্চিত্র থেকে দুটি এবং ‘স্ক্রিনিং’ বিভাগে জমা পড়া ৬৪টি চলচ্চিত্র থেকে ২৬টি; সর্বমোট ৩৮টি চলচ্চিত্র চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত করেন।
দুই দিনব্যাপী আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে জমা পড়া চলচ্চিত্রগুলো থেকে চূড়ান্ত পর্যায়ে নির্বাচিত চলচ্চিত্রগুলো প্রদর্শিত হচ্ছে। ‘

আগামীকাল (১৬ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে নির্বাচিত চলচ্চিত্রগুলোর মধ্য থেকে সেরা চলচ্চিত্র নির্মাতাদের জন্য থাকছে ‘সিনেমাস্কোপ বেস্ট ফিল্ম’ অ্যাওয়ার্ড এবং ‘ইউল্যাব ইয়াং ফিল্ম মেকার’ অ্যাওয়ার্ড।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে