মিয়ানমার থেকে ২০৩ শরণার্থীর অনুপ্রবেশ বাংলাদেশে।

0
211

ইফফাত জাহান, OURBANGLANEWS DESK।

বান্দরবানের রুমা উপজেলার পাংসা সীমান্ত দিয়ে মিয়ানমারের বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের শরনার্থীদের ঢল নেমে এসেছে বাংলাদেশে। গত শনিবার মিয়ানমারের চীন রাজ্য থেকে ১৬৩ জন বৌদ্ধ শরণার্থী চাইক্ষ্যং সীমান্তের শূন্যরেখায় অবস্থান নেয়। তারা বর্তমানে রেমাক্রী পাংসা ইউনিয়নের ৭২ নম্বর পিলার চাইক্ষ্যং পাড়ায় অবস্থান করছে। তার ৪ দিন পর গত বুধবার আরও ৪০টি পরিবার বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে। এ নিয়ে শরনার্থীদের সংখ্যা দাঁড়ায় মোট ২০৩ জন।
স্থানীয়রা বলেন, আশপাশের এলাকার লোকজন এসব শরনার্থীদের খাদ্য সরবরাহ করে সহযোগিতা করছেন। মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা বৌদ্ধ শরণার্থীরা চাইক্ষ্যং পাড়ার তিনটি জায়গায় তাবু বানিয়ে বসবাস করছেন। জানা যায়, বেশ কিছুদিন যাবৎ মিয়ানমারের চীন রাজ্যের প্লাতোয়া জেলার কান্তালিন, খামংওয়া, তরোয়াইন এলাকাতে উক্ত দেশের সেনাবাহিনীর সঙ্গে আরাকান আর্মির তীব্র সংঘর্ষ চলছে।

সেনাবাহিনীর আক্রমণ থেকে জীবন বাঁচাতে এসব শরণার্থীরা সীমান্ত অতিক্রম করে চাইক্ষ্যং পাড়ায় অবস্থান নিচ্ছে। সীমান্তে শরণার্থীদের পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে সেনাবাহিনী ও বিজিবির একটি পর্যবেক্ষণ টিম এলাকাটি পরিদর্শন করেছে। টহলের মাধ্যমে জোরদার করা হয়েছে সীমান্তের নিরাপত্তা।

এছাড়া, প্রশাসন কর্মীরা স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকে সেখানে পাঠিয়েছেন বলে, জানা গেছে। গত বুধবার হেলিকপ্টারে করে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের মিয়ানমার সীমান্ত এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। শরণার্থীদের মনোভাব এবং সরকারের উচ্চপর্যায়ের পদক্ষেপগুলো জানার পর তাদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

উল্লেখ্য যে , দুই বছর আগে ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে রোহিঙ্গাদের তীব্র সংঘর্ষের পর প্রায় আট লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে। যারা বর্তমানে চট্টগ্রাম জেলায় অবস্থান করছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে