মাফিয়া ডন দাউদ ও তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

0
80

ডন দাউদ ও তার স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

১৯৯৩ সালে মুম্বাই বিস্ফোরণের প্রধান চক্রী, ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেড ডন দাউদ ইব্রাহিম ও তার স্ত্রী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। দাউদ করাচির সেনা হাসপাতালে ভর্তি আছেন, তার বডিগার্ড কোয়ারেন্টাইনে আছে।

২০১৭ সালে দাউদের অসুস্থতার খবর ছড়ালে তার ভাই কাসকর পুলিশের জেরায় দাবি করেন, দাউদ পুরোপুরি সুস্থ আছেন। তিনি নিরাপত্তা নিয়ে পাকিস্তানে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

দাউদের আইনজীবী শ্যাম কেসওয়ানি ২০১৮ সালে জানান, দাউদ শর্তসাপেক্ষে আত্মসমর্পন করতে চায়। কেসওয়ানি জানিয়েছিলেন, দাউদ আত্মসমর্পন করার জন্য যে শর্তগুলি দিয়েছে তার মধ্যে একটি হল তাকে মুম্বইয়ের আর্থার রোড সেন্ট্রাল জেলে রাখতে হবে। ২০০৮ সালে মুম্বাই বিস্ফোরণের অন্যতম চক্রী আজমল কসাভকে এই জেলেই রাখা হয়েছিল।

নিউজ এইট্টিনের সুত্র মতে, দাউদ পাকিস্তানের করাচিতে একটি সেনা হাসপাতালে ভর্তি আছেন, দাউদের বডিগার্ড কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে।

প্রসঙ্গত, মুম্বইয়ের ডাংরিতে জন্মগ্রহণ করা দাউদ ইব্রাহিম দীর্ঘদিন ধরে কাসকর করাচির বাসিন্দা। যদিও পাকিস্তান তা স্বীকার করে না। দাউদ ইব্রাহীম ভারতের মোস্ট ওয়ান্টেডের তালিকায় রয়েছে।

তাকে ১৯৯৩ সালের মুম্বাই বিস্ফোরণের প্রধান অভিযুক্ত হিসেবে ধরা হয়। ২০০৩ সালে ভারত ও আমেরিকা দাউদ কে গ্লোবাল টেররিস্ট হিসেবে ঘোষণা করে।

আমেরিকার কেন্দ্রিয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইও দাউদকে বিশ্বের প্রথম দশ ওয়ান্টেডের তালিকায় রেখেছে। আমেরিকাও দাউদকে জঙ্গি তকমা দেয়ায় এই মাফিয়া ডনের পাকিস্তান ছাড়াও কঠিন হয়ে গিয়েছে।

দাউদ যে সপরিবারে পাকিস্তানে লুকিয়ে রয়েছে এবং সেখান থেকেই অপরাধ জগতের রিমোট কন্ট্রোল চালাচ্ছেন তা আগেই ইসলামাবাদকে তথ্যপ্রমাণ সহ জানিয়ে দিয়েছে নয়াদিল্লি।

কিন্তু সে তথ্য বারবার অস্বীকার করেছে পাকিস্তান। দুবাই-শারজাতেও দাউদের আনাগোনার প্রমাণ হাতে আছে ভারতীয় ইন্টেলিজেন্সের। রাডারে থাকলেও কূটনীতির বেড়াজালের কারণে ভারতের হাত থেকে বহুবার ফস্কে গেছে দাউদ।

(সূত্র: কলকাতা ২৪)

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে