মাত্র তিনদিনের খাদ্যাভ্যাসে মিলবে করোনাসহ যেকোন ভাইরাস থেকে মুক্তি

0
206

মাত্র তিনদিনের খাদ্যাভ্যাসে মিলবে করোনাসহ যেকোন ভাইরাস থেকে মুক্তি

করোনাভাইরাসসহ যেকোন ভাইরাস জনিতরোগ (জিকা, নীপা, ডেঙ্গুজ্বর, চিকুনগুনিয়া) থেকে মাত্র তিন দিনের খাদ্যাভ্যাসে মুক্তি পাওয়া সম্বভ। ভারতীয় চিকিৎসক ডা. বিশ্বরূপ রায় চৌধুরী ভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের সুস্থতার জন্য ৩ ধাপের খাদ্যাভ্যাস সুপারিশ করেছেন।

ভাইরাস জনিত রোগের প্রথম লক্ষণ জ্বর আসা। তাই জ্বর অনুভূত হলে এ তিনটি ধাপ অনুসরণ করতে হবে।

প্রথম দিন, শুধু তরল জাতীয় খাবার গ্রহণ করতে হবে। প্রথম দিন আক্রন্তকে শরীরিক ওজনের ১০ ভাগের এক ভাগ ডাবের পানি পান করতে হবে। অর্থাৎ আক্রান্তের ওজন ৮০ কেজি হলে, আক্রান্তকে ৮ গ্লাস পরিমাণ ডাবের পানি ও ৮ গ্লাস বিভিন্ন ধরনের ফলের রস খেতে হবে।

জ্বরের প্রথম দিনে শরীরিক ওজনের ১০ ভাগের এক ভাগ পরিমাণে শুধু ডাবের পানি এবং বিভিন্ন ফলের রস খেতে হবে। এ ছাড়া অন্য কিছু খাওয়া যাবে না। প্রথম দিন শেষে দ্বিতীয় দিনে জ্বর অনেকটা নিয়ন্ত্রিত অবস্থায় চলে আসবে।

দ্বিতীয় দিন আক্রান্ত ব্যাক্তিকে শরীরিক ওজনের ২০ ভাগের এক ভাগ পরিমাণ ডাবের পানি এবং বিভিন্ন ফলের রস খেতে হবে। অর্থাৎ আক্রান্তের ওজন ৮০ কেজি হলে, আক্রান্তকে ৪ গ্লাস ডাবের পানি এবং ৪ গ্লাস ফলের রস খেতে হবে। পাশাপাশি শরীরিক ওজনের ৫ গুন পরিমাণ টমেটো ও শসা খেতে হবে। অর্থাৎ আক্রান্তের শারীরিক ওজন ৮০ কেজি হলে, (৮০ গুন ৫) তাকে ৪০০ গ্রাম টমেটো এবং শসা খেতে হবে।

এরপর তৃতীয় দিন সকাল থেকে দুপুর (১২ টা) পর্যন্ত আক্রান্তের শরীরিক ওজনের ৩০ ভাগের এক ভাগ ডাবের পানি এবং ফলের রস খেতে হবে। এবং দুপুর থেকে শরীরিক ওজনের ৫ গুন পরিমাণ টমেটো ও শসা খেতে হবে। আক্রান্ত ব্যাক্তি রাত থেকে সাধারণ খাবার খেতে পারবে। কারণ, ইতিমধ্যে আপনি সুস্থ হয়ে উঠেবেন।

অতএব, ভাইরাস জনিত রোগ নিয়ে দুশ্চিন্তার কোন কারণ নেই। এ খাদ্যাভ্যাস অনুসরন করলে কোন ভাইরাসই আপনার শরীরে ৭২ ঘন্টার বেশি স্থায়ী হতে পারবে না।

তবে মনে রাখতে হবে এসব আপনি ওষুধ হিসেবে খাচ্ছেন। তাই কোনো ভাবেই কম খাওয়া যাবে না। বরং আপনি বেশি খেতে পারেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে