পাবনায় বজ্রপাতে ৫ জন নিহত।

0
308

OURBANGLANEWS DESK।

১৪ জুন শুক্রবার, বিকালে পাবনার বেড়া এবং ভাঙ্গুড়ার পৃথক তিনটি স্থানে বজ্রপাতে মারা গেছেন, এক স্কুলছাত্রীসহ পাঁচজন।

নিহতরা, মান্নান (৫৮), বেড়া উপজেলার নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নের আগবাকশোয়া গ্রামের জিনাত প্রামাণিকের ছেলে; সালাম (৫০),

হবিবর প্রামাণিকের ছেলে; আনসার সেখ (৬০), মনসের সেখের ছেলে; নাছিমা খাতুন (১৩), চর বোরামারা গ্রামে তমসের ব্যাপারীর মেয়ে

এবং শামীম আহমেদ (৩৫), ভাঙ্গুড়া উপজেলার ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের নৌবাড়িয়া গ্রামের হারান আলীর ছেলে।

১৪ জুন শুক্রবার, বিকাল সাড়ে ৩ টার দিকে ঘটে এ ঘটনা। নিহতরা সবাই গিয়েছিলেন মাঠে কাজ করতে।

বেড়ার বোরামারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ফেরদৌস তপন জানান,

বাড়ির পাশের মাঠে পরিবারের অন্যদের সঙ্গে বাদাম তুলতে গিয়ে বজ্রপাতে আহত হয় চর বোরামারা গ্রামে তমসের ব্যাপারীর মেয়ে নাছিমা খাতুন।

নতুনভারেঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ছিল নিহত নাছিমা খাতুন।

তাকে আহতাবস্থায় বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে, চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, আমজাদ হোসেন জানান,

গরুর জন্য বাড়ির পাশের মাঠ থেকে ঘাস কেটে বাড়ি ফিরছিলেন আগবাকশোয়া গ্রামের তিন কৃষক। ফেরার পথে বজ্রপাতে, তারা ঘটনাস্থলেই মারা যান।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন বেড়া মডেল থানার ওসি শাহিদ মাহমুদ। এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে, এক দিনে একি এলাকার চারজনের অকাল মৃত্যুতে।

এদিকে, বজ্রপাতে পাবনার ভাঙ্গুড়া ইউনিয়নের নৌবাড়িয়া গ্রামের মাঠে মারা যান শামীম আহমেদ (৩৫)।

স্থানীয়রা জানায়, গরুকে ঘাস খাওয়াতে শামীম দুপুরে গ্রামের মাঠে গিয়েছিল। তিনি বজ্রপাতে মারাত্মকভাবে আহত হন।

পরে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয়রা ভাঙ্গুড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে, কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বজ্রপাতে নিহতের বিষয়টি ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মো. মাসুদ রানা নিশ্চিত করেছেন।