পরীক্ষার্থীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিল বোরকা পরা দুর্বৃত্ত।

0
271

OURBANGLANEWS DESK।

ফেনীর সোনাগাজীতে বোরকা পরা চার দুর্বৃত্ত কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় এক পরীক্ষার্থীর গায়ে। এ কারণে তিনি চিনতে পারেননি কাউকেই।

তবে তাঁর সঙ্গে একজন নারীকণ্ঠে কথা বলেছে চারজনের মধ্যে। কোনো কথা বলেনি বাকি তিনজন। এবার আলিম পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছিলেন ওই পরীক্ষার্থী।

০৬ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের সামনে ওই পরীক্ষার্থী ভাই বলেন, তাঁদের এ কথা ঘটনার পর তাঁর বোন জানিয়েছেন।

বর্তমানে বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা নিচ্ছেন অগ্নিদগ্ধ ওই পরীক্ষার্থী। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন তাঁর অবস্থা সংকটাপন্ন। এখনো মামলা হয়নি এই ঘটনায়।

বলেন ওই পরীক্ষার্থীর ভাই, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তাঁর বোন কিছু কথা বলেন ঘটনার পর।

বোনের কথায় তিনি বলেন, একজন পরীক্ষার্থী পরীক্ষার কেন্দ্রে যাওয়ার পর তাঁকে বলে, ছাদে কারা যেন তাঁর এক বান্ধবীকে মারধর করছে।

এটা শুনে ছাদে যায় তাঁর বোন। এই ঘটনা সেখানেই ঘটে। তিনি বলেন, মনে হয়েছে বোনের কথা শুনে,

তাঁর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় বোরকা পরা চারজন মিলে।

আর সেও এদের সঙ্গে যুক্ত, যে তাঁকে ছাদে যেতে প্রলুব্ধ করেছে। তবে পরিচয় জানা যায়নি এদের। তাঁর ধারণা পুরুষও হতে পারে এরা নারীর বেশ ধরে।

দাবি ওই পরীক্ষার্থীর ভাইয়ের, আজকের ঘটনা সোনাগাজীর একটি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ তাঁর লোকজন দিয়ে ঘটিয়েছেন ২৭ মার্চের ঘটনার জের ধরে।

তাঁর বোনকে ওদিন ওই অধ্যক্ষ অনৈতিক প্রস্তাব দেন মাদ্রাসার নিজ কক্ষে। অধ্যক্ষ উল্লেখ করেন রাজি হলে আগে দেওয়া হবে আলিম পরীক্ষার প্রশ্নপত্র।

অধ্যক্ষ এখন কারাগারে আছেন এ ঘটনায় মামলা হওয়ায়।

ওই পরীক্ষার্থীর ওপর ২০১৬ সালে দাখিল পরীক্ষা দেওয়ার সময়ও হামলা চালিয়েছিল এলাকার দুর্বৃত্তরা। মেয়েটির চোখে সেবার চুন মারা হয়।

এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল তাঁর ডান চোখ। তবে ওই পরীক্ষার্থীর ভাই বুঝতে পারছেন না ওই ঘটনার সঙ্গে আজকের ঘটনার কোনো যোগসূত্র আছে কি না, সেটি।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অগ্নিদগ্ধ শিক্ষার্থীর আত্মীয়রা জানান, যে মাদ্রাসায় মেয়েটি পড়েন,

সেখানে নানা অপকর্ম চালিয়ে আসছিলেন অধ্যক্ষ। এর বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি মাদ্রাসা পরিচালন কমিটি।

তবে মো. মোয়াজ্জেম হোসেন সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেন, ঘটনাটি খুব গুরুত্বের সঙ্গে পুলিশ খতিয়ে দেখছে তদন্ত করে।

তদন্ত করে বের করা হবে, এ ঘটনায় কে বা কারা জড়িত। ঘটনার পরঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে