পথে ধারে বাহারি পিঠার আয়োজন।

0
242

ইফফাত জাহান, OURBANGLANEWS DESK।


গ্রামাঞ্চলে শীত মৌসুম এলেই ঘরে ঘরে পিঠা তৈরীর ধুম পরে যায়। ভোর হতেই মা-ঝিয়েরা পিঠা তৈরীতে ব্যস্ত হয়ে পরে। যার মধ্যে—- ভাপা, চিতই, নকশী, পাটিসাপটা, রসের পিঠা এবং আরোও অনেক বাহারি স্বাদের পিঠা তৈরী করে থাকে। এমন কুয়াশাছন্ন দিনগুলোতে কে না চাইবে গরম পিঠার স্বাদ উপভোগ করতে। গ্রামবাংলায় নিজ নিজ ঘরে পিঠা উৎসবের এমন চিত্রের দেখা মিললেও, ঢাকায় এর একেবারেই ভিন্ন।
পৌষ শেষে এখন মাঘ মাস চলে। শীত সমাপ্তির পথে হলেও চারিদিকে হিম শীতল আবহাওয়া এখনও বিদ্যমান। শীতের আগমন ও গরম পরার আগ পর্যন্ত ঢাকার রাস্তার ধারে ধারে দেখা মেলে বাহারি স্বাদের ভাসমান পিঠার দোকান। কর্মব্যস্ত শহুরে মানুষের তৃপ্তি মেটাবার জন্যে এসব দোকানিরা তৈরী করে হরেক রকমের পিঠা। যার মধ্যে বেশিরভাগই ভাপা ও চিতই তৈরী করা হয়।

মানুষের চাহিদা মাফিক তৈরীকৃত এ সকল পিঠা কিনতে পাওয়া যাবে বেশ অল্প দামেই। পিঠা তৈরীর উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করা হয় নারিকেল, গুর ও চালের গুরো। বিকেলের পর থেকে এসকল দোকান খোলা হয়। চাওয়া মাত্রই গরম গরম পিঠা তৈরী করে দেওয়া হয় চোখের সামনেই। তাই, দোকানগুলোতে জমজমাট বাঁধতেও দেরী হয় না বেশি।
এছাড়া, ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় পিঠা উৎসবেরও আয়োজন করা হয়ে থাকে। যেখানে মানসম্মত ও মজাদার পিঠা রাখা হয় বিভিন্ন স্টলে। কর্মব্যস্ত মানুষের অনেকেরই যাওয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না সেসব জায়গায়। তাই বাছাই করে নেয় রাস্তার ধারের ভাসমান পিঠার দোকানগুলো।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে