নুসরাত হত্যা মামলার চার্জশিটে ১৬ জন, সবার ফাঁসি চাওয়া হবে।

0
193

OURBANGLANEWS DESK।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার জানিয়েছেন ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় চার্জশিটে ১৬ জনকে অভিযুক্ত করা হবে।

২ মে মঙ্গলবার পিবিআই সদর দপ্তরে পিবিআই প্রধান সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

তিনি জানিয়েছেন চার্জশিটে নাম থাকা সবার সর্বোচ্চ শাস্তি চাওয়া হবে মৃত্যুদণ্ড। ২ মে বুধবার মামলার চার্জশিট দেওয়া হবে।

অভিযুক্ত ১৬ আসামি, এসএম সিরাজউদ্দৌলা (৫৭), নুর উদ্দিন (২০), শাহাদাত হোসেন শামীম (২০),

মাকসুদ আলম ওরফে মোকসুদ আল কাউন্সিলর (৫০), সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের (২১), জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ (১৯), হাফেজ আব্দুল কাদের (২৫),

আবছার উদ্দিন (৩৩), কামরুন নাহার মনি (১৯), উম্মে সুলতানা ওরফে পপি ওরফে তুহিন ওরফে শম্পা ওরফে চম্পা (১৯),

আব্দুর রহিম শরীফ (২০), ইফতেখার উদ্দিন রানা (২২), ইমরান হোসেন ওরফে মামুন (২২), মোহাম্মদ শামীম (২০), রুহুল আমিন (৫৫), ও মহিউদ্দিন শাকিল (২০)।

বনজ কুমার বলেন, ‘তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ছিলাম যে, এ মামলার আসামিরা কেউ ছাড় পাবে না।

বিচার চলাকালে আদালতে সব আসামি উপস্থিত থেকে নিজ চোখে তাদের বিচার দেখবে। আমরা পেরেছি, সব আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলাকে পুলিশ আটক করে ওই মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়ের দায়ে।

পরবর্তীতে চাপ প্রয়োগের পরও সিরাজের বিরুদ্ধে মামলা নুসরাত তুলে না নেওয়ায়।

৬ এপ্রিল মাদ্রাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নুসরাতকে সিরাজের অনুসারীরা মারাত্মকভাবে অগ্নিদগ্ধ করে।

এতে পুড়ে যায় নুসরাতের শরীরে ৮০ শতাংশ। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে নুসরাতকে স্থানান্তর করা হয়।

সেখানে ১০ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টায় নুসরাতের মৃত্যু হয়।