ধনীদের পছন্দের ১০ পণ্য।

0
212

OURBANGLANEWS DESK।

২০০ টাকায় হাতঘড়ি পাওয়া যায় ঢাকার রাস্তায়। সেই ঘড়িতে সময় দেখা যায়।

কিন্তু ঘড়ি শুধু সময় দেখার জন্য নয়, ধনীদের জন্য আভিজাত্যেরও প্রতীক। তাঁরা সে কারণে কোটি টাকা ব্যয় করেন ঘড়ি কিনতে।

২০১৮ সালে ৫৯ লাখ মার্কিন ডলারে বিক্রি হয়েছে একটি ঘড়ি, যার দাম বাংলাদেশি মুদ্রায় পড়েছে ৫০ কোটি টাকা।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক নাইট ফ্রাঙ্ক নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সম্পদ প্রতিবেদন বা ওয়েলথ রিপোর্ট-২০১৯-এ উঠে এসেছে ধনীরা কী কেনেন, কোথায় বিনিয়োগ করেন,

তাঁদের কাঙ্ক্ষিত বস্তু কী কী—এসব বিষয়। ধনীরা ২০১৮ সালে সবচেয়ে বেশি দাম দিয়ে কী কী বস্তু কিনেছেন, তার একটা তালিকা তুলে ধরা হয়েছে।

তালিকায় দেখা যায়, চিত্রকর্মের মধ্যে ইংরেজ চিত্রশিল্পী ডেভিন হকনির ‘পোট্রেট অব অ্যান আর্টিস্ট’ নামের একটি চিত্রকর্মের দাম উঠেছে সবচেয়ে বেশি।

নিলামে চিত্রকর্মটি বিক্রি হয়েছে সাড়ে ৯ কোটি ডলার বা ৯৬৫ কোটি টাকায়। কে কিনেছেন, তা নাইট ফ্রাঙ্কের প্রতিবেদনে নেই।

সাধারণত দুষ্প্রাপ্য হুইস্কি সংগ্রহে রাখতে ধনীরা পছন্দ করেন। ২০১৮ সালে সবচেয়ে দামি হুইস্কি বিক্রি হয়েছে মূল্য ১৫ লাখ ডলার বা ১ কোটি ২০ লাখ টাকায়।

যুক্তরাজ্যের দ্য ম্যাকালান ডিস্টিলারি, ম্যাকালান-১৯২৬ নামের ওই হুইস্কির উৎপাদক। বিক্রিত ওই হুইস্কির বোতলে চিত্রশিল্পী মাইকেল ডিলনের নিজ হাঁতে আকা চিত্রকর্ম রয়েছে।

নিলামে ৩ কোটি ৬০ লাখ ডলারে (৩০৬ কোটি টাকা) বিক্রি হয়েছে ফ্রান্সের রানি মারি অ্যান্তনয়েত্তির একটি গলার হার। যেটি সবচেয়ে দামি অলংকার।

সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হয়েছে রোলেক্সের তৈরি ঘড়ি। ফিলিপস নামের একটি নিলামকারী প্রতিষ্ঠান ‘১৯৭০ রোলেক্স ডেটোনা’ নামের ঘড়িটি নিলামে ৫০ কোটি টাকায় বিক্রি করে।

‘ফেরারি’ ইতালির অভিজাত গাড়ি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ১৯৬২ থেকে ১৯৬৪ সাল পর্যন্ত ‘ফেরারি ২৫০ জিটিও’ মডেলের কিছু গাড়ি তৈরি করেছিল,

গত বছর নিলামে যার একটি বিক্রি হয় ৪ কোটি ৮৪ লাখ ডলারে (৪১১ কোটি টাকা)। এটি নিলামে বিক্রি হওয়া সবচেয়ে দামি গাড়ি।

৫ লাখ ৫৮ হাজার ডলারে নিলামে বিক্রি হয় ফ্রান্সের একটি ওয়াইন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের ৭৪ বছর পুরোনো এক বোতল ওয়াইন, যা ২০১৮ সালের সবচেয়ে দামি ওয়াইনের তকমা পায়।

ধনীরা পছন্দ করেন পুরোনো স্ট্যাম্প, রঙিন হীরা, পুরোনো মুদ্রা বা কয়েন ও আসবাব সংগ্রহে রাখতে। গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে ১৬ লাখ ডলারে (সাড়ে ১৩ কোটি টাকা) বিক্রি হয়েছে ১৯১৮ সালের একটি স্ট্যাম্প।

২২ লাখ ডলারে (১৮ কোটি ৭০ লাখ টাকা) বিক্রি হয় পোল্যান্ডের ১৬২১ সালের একটি স্বর্ণমুদ্রা। ৫ কোটি ডলার বা ৪২৫ কোটি টাকায় বিক্রি হয় ১৯ ক্যারেটের একটি গোলাপি হীরা।

একটি হাতির দাঁতখচিত দেরাজওয়ালা আলমারি ছিল আসবাবের মধ্যে সবচেয়ে দামি পণ্যটি।

১৯৯১ সালে নিলামে এক দফা ৯ লাখ ৩৫ হাজার ডলারে (প্রায় ৮ কোটি টাকা) বিক্রি হয়েছিল ব্রিটিশ শিল্পপতি ও রাজনীতিবিদ স্যার রোনাল্ড উইনের (১৭৩৯-৮৫) বাসভবনে ব্যবহৃত ওই আলমারি।

এবার ৫০ লাখ ডলার দাম চাওয়া হয়, যা বিক্রি হয়নি। অবশ্য নিলামে ওঠানোর আগে আলমারিটি থেকে হাতির দাঁতের নকশা তুলে নেওয়া হয়, আইনি ঝামেলা এড়াতে।