দিয়ার আত্মহত্যা চেষ্টা।

0
164

OURBANGLANEWS DESK।

জানা গেছে ১৩ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মধু ক্যানটিনে হামলার ঘটনায় ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেত্রী জারিন দিয়া।

তাঁকে ২০ মে সোমবার রাতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

২১ মে মঙ্গলবার দুপুরে তিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন।

ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় গতকাল কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সংগঠন থেকে একজনকে স্থায়ীভাবে ও চারজনকে সাময়িক বহিষ্কার করে।

এর মধ্যে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে জারিন দিয়াকে।

জানা গিয়েছে মধু ক্যান্টিনে হামলার ঘটনায় ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যকরী সদস্য জারিন দিয়া আহত হয়।

তিনি তার ফেসবুক প্রোফাইলে জানিয়েছেন তার কোমরের হাড় ভেঙে গিয়েছে।

তিনি ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে অনেকগুলো ঘুমের ওষুধ খান। পুলিশের সহায়তায় তার নম্বর ট্র্যাকিং করে তাঁকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যা কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জারিন দিয়াকে মঙ্গলবার দুপুর একটার দিকে হাসপাতাল থেকে বাসায় নেওয়া হয়।

তার বন্ধুরা জানান জ্ঞান ফিরলেও তিনি এই মুহূর্তে কথা বলার অবস্থায় নেই।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, গতকাল রাতে ঘুমের ওষুধ খেয়ে অসুস্থ জারিন দিয়াকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

তাঁর ‘পাকস্থলী পরিষ্কার’ করা হয়। তিনি ভর্তি ছিলেন হাসপাতালের ৫০২ নম্বর ওয়ার্ডে।

তাঁকে আজ দুপুরে ছেড়ে দেওয়া হয়।

পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া অংশের নেতৃত্বে থাকা ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু সাময়িক বহিষ্কৃত জারিন দিয়া নিজে মধুর ক্যানটিনের ঘটনায় আহত হয়েছেন দাবি করে বলেন, ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে জারিনকে বহিষ্কার করেছেন।