তরুণীর শ্লীলতাহানির চেষ্টায়, গণধোলাই দিয়ে মাথা ন্যাড়া।

0
235

OURBANGLANEWS DESK।

মানিকগঞ্জে, তরুণীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করার অভিযোগে জনতা শরীফুল ইসলাম (১৯) নামে এক বখাটে যুবককে গণধোলই দিয়ে মাথা ন্যাড়া করে দিয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার তেওতা ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

দক্ষিণ তেওতা গ্রামের হামেদ মৃধার ছেলে শরীফুল ইসলাম।

তবে শরিফুল ইসলাম দাবি করেন, তিনি তরুণীকে শ্লীলতাহানি করেননি, তিনি শুধু নাম জিজ্ঞাসা করেছিলেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, শিবালয় উপজেলার আলোকদিয়া চরের এক তরুণী শুক্রবার বিকালে তেওতা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে আসেন, চলমান ভোটার তালিকায় নাম অর্ন্তভুক্তি ও ছবি তোলার জন্য।

একই উদ্দ্যেশে আসা শরীফ, ওই তরুণীকে পরিষদের বাথরুমে একা পেয়ে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে।

এসময় ভোটার হতে আসা উপস্থিত লোকজন, তার চিৎকারে বখাটেকে আটকের পর মারধর করেন।

এসময় ভুক্তভোগী এবং তার আত্মীয়-স্বজনদের অভিযোগ না থাকায় বখাটেকে ধমক দিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান তাকে পরিষদ থেকে বের করে দেন।

কিন্ত শরীফ বাইরে থেকে বের হলে উত্তেজিত জনতা, তাকে জোর করে ধরে তার মাথা ন্যাড়া করে ছেড়ে দেয়।

তেওতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মানসম্মানের ভয়ে ভুক্তভোগী এবং তার আত্মীদের বিষয়টি নিয়ে কোন অভিযোগ না থাকার কারণে শরীফকে শত শত লোকের উপস্থিতিতে শাসন করে, বিষয়টি মীমাংসা করে দেওয়া হয়।

স্থানীয় পয়লা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আতিকুর রহমান আতিক বলেন, এলাকার চিহিৃত বখাটে শরীফুল।

তার বিরুদ্ধে অতীতেও নারী ঘটিত, বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া গেছে। জনতা এজন্যই তাকে এমন শাস্তি দিয়েছে।

শিবালয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ এফএম ফিরোজ মাহমুদ জানান, তার কাছে এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেননি।

অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।