ঝড়ে বিদ্যুতের ছেঁড়া তার স্পর্শ করবেন না।

0
443

OURBANGLANEWS DESK।

বাংলাদেশ উপকূলে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ শুক্রবার আঘাত হানতে পারে।

বিদ্যুৎ বিভাগ অনুরোধ জানিয়েছে এসময় বিদ্যুতের ছেঁড়া তার বা হেলে পড়া বিদ্যুৎ লাইন স্পর্শ না করে দ্রুত স্হানীয় বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য।

এদিকে উপকূলীয় এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত লাইন মেরামতে যাচ্ছে আরইবির প্রতিটি সমিতি থেকে ১০ জন করে লাইনম্যান।

মীর আসলাম উদ্দিন বিদ্যুৎ বিভাগের জনসংযোগ কমকর্তা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শুক্রবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রমের আশঙ্কা রয়েছে ঘূর্ণিঝড় ফণীর।

বিশেষ করে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে দেশের উপকূল এলাকায় বিদ্যুৎ ব্যবস্থার।

অনুরোধ জানানো হলো এ অবস্থায় বিদ্যুতের ছেঁড়া তার বা হেলে পড়া বিদ্যুৎ লাইন স্পর্শ না করে দ্রুত স্থানীয় বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য।

এদিকে আরইবি জানায়, তারা সবসময় কিছু উদ্যোগ নেয় এই ধরনের দুর্যোগ মোকাবিলায়। এই উদ্যোগে অনুসরণ করা হয় এসওপি ( স্ট্যান্ডারড অপারেটিং প্রসিডিউর)।

এই এসওপির অধীনে ঝড়ে সতর্ক থাকার নানা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে আরইবির অধীন ৮০টি সমিতিকে।

গত বুধ ও বৃহস্পতিবার আরইবির ৮০টি সমিতির সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে কথা বলেন আরইবির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব) মুঈন উদ্দিন।

এ সময় তিনি সমিতিগুলোকে নির্দেশ দেন ঝড়ের বিষয়ে এসওপি বাস্তবায়নের।

এ বিষয়ে অঞ্জন কুমার দাস আরইবির তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বলেন, ‘এসওপির আওতায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে সব কর্মকর্তা কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

ঝড়ে ক্ষতি মোকাবিলায় মেরামতের কাজের জন্য প্রতিটি সমিতি থেকে ১০ জন লাইনম্যান যাবে উপকূলের জেলাগুলোতে।

শুক্রবার সকালেই তারা নোটিশ অনুযায়ী যার যার অবস্থানে পৌঁছে যাবে।

মেরামত কাজের সুবিধার জন্য আগে থেকেই প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি মজুদ রাখা, কমপ্লেইন সেন্টার করাসহ সব ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

আরও বলেন তিনি, ‘ঝড়ের পরপরই যাতে কাজে নামা যায় সেভাবেই তৈরি হচ্ছি আমরা।’