জনপ্রিয় পপ সঙ্গীত শিল্পী আসিফ আকবরের জন্মদিন আজ।

0
227

OURBANGLANEWS DESK।

আসিফ আকবর। পিতা আলী আকবর। আসিফের জন্ম ১৯৭২ সালের ২৫ মার্চ কুমিল্লায়। পাঁচ ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন ষষ্ঠ। আসিফ একজন জনপ্রিয় পপ সঙ্গীত শিল্পী।

২০০১ সালে প্রকাশ পায় তার প্রথম একক এলবাম ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’। এই এলবামের মাধ্যমে আসিফের গানের জীবন শুরু।

এর মাধ্যমে ব্যপক পরিচিত ও জনপ্রিয়তা পায় সে। তারপর থেকে প্রকাশ পেয়েছে অনেক একক ও দ্বৈত এলবাম।

তার প্রকাশিত প্রথম এলবামের কপি বিক্রি হয়েছিল ৫.৫ মিলিয়ন। যা অডিও ইতিহাসের সর্বোচ্চ সংখ্যক কপি বিক্রি। আসিফ ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল টানা ৬ বছর এলবাম বিক্রির দিক থেকে শীর্ষে ছিলেন।

আসিফের প্রথম একক এলবাম শুধু বাংলাদেশ নয় ব্যপক দর্শক জনপ্রিয়তা পেয়েছিল ভারতেও। আসিফ তার গানের জীবনে পা রাখার পর থেকে দর্শক পেয়েছে অসংখ্য মনের মতো গান।

যা আজও ক্ষনে ক্ষনে মনে করিয়ে দেয় আসিফের কথা।২০০১ সাল থেকে আসিফের ৩০ টি একক এলবাম প্রকাশ পেয়েছে। সবগুলো পপ সঙ্গীতের এলবাম শুধু দারিদ্রের নামে একটি লোক সঙ্গীতের এলবাম বের করে আসিফ।

প্রত্যেকটি এলবাম পায় ব্যপক দর্শক জনপ্রিয়তা। তার প্রথম চলচ্চিত্রে গাওয়া গান, ‘আমার ভাগ্যে তোমারই নাম’। চলচ্চিত্রটি প্রকাশ পায় ১৯৯৭ সালে।

কয়েকটি উল্লেখযোগ্য একক এলবাম, ও প্রিয়া তুমি কোথায়, তুমি কথা রারাখনি, তুমিই ভালোবাসনি, জবাব দাও, অভিনয় ইত্যাদি।

আসিফ প্রায় শতাধিক দ্বৈত এলবাম ও করেছেন। তিনি কাজ করেছেন এ যুগের বিক্ষত সঙ্গীত শিল্প ন্যান্সির সাথে।

তার কাজ করা উল্লেখযোগ্য দ্বৈত এলবামের মধ্যে রয়েছে, আর কত কাঁদাবে, আমার প্রিয় বান্ধবী, কেমন আছো তুমি, মিষ্টি মেয়ে, ওই দুটি চোখ, সাত আসমান ও গড়ার গান ইত্যাদি।

আসিফ ২ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও ৬ বার মেরি প্রথম আলো পুরস্কার পায়।

সালমা আসিফ মিতু তার সহর্ধমিনী। আসিফ রণ এবং রুদ্র নামের দুই সন্তানের জনক।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে