অন্তঃসত্ত্বা শিশুকন্যা, মা অসহায়।

0
155

OURBANGLANEWS DESK।

এক মা কয়েক দিন ধরে দেখলেন, স্বাভাবিকের চেয়ে বড় দেখাচ্ছে তাঁর ১১ বছর বয়সী মেয়ের পেট।

চিকিৎসকের কাছে পেটের কোনো সমস্যা ভেবে নিয়ে গিয়ে জানলেন, ২৩ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা মেয়ে। তাদের প্রতিবেশী ধর্ষণের বিষয়টি আড়াল করে কাউকে বললে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে।

মা ওই প্রতিবেশীকে এ ঘটনায় আসামি করে এ ঘটনায় করেছেন মামলা। কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ঘটনা।

সাংবাদিকদের শিশুটির মা বলেন, তিনি গত ৩১ মার্চ রোববার মেয়েকে নিয়ে মিরপুরে এক চিকিৎসকের কাছে যান স্বাভাবিকের চেয়ে মেয়ের পেট বড় দেখাচ্ছে বলে।

আলট্রাসনোগ্রাফি করান চিকিৎসকের পরামর্শে। জানতে পারেন, অন্তঃসত্ত্বা তাঁর মেয়ে।

এক কর্মকর্তা ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বলেন, ২৩ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা মেয়েটি।

দাবি করেন মা, মেয়ের সঙ্গে কথা বলে তিনি জানতে পারেন তাদের প্রতিবেশী পাঁচ-ছয় মাস আগে বাড়িতে মেয়েকে ধর্ষণ করে তাঁর অনুপস্থিতিতে।

প্রতিবেশী একই সঙ্গে মেয়েকে বলে, তাকে মেরে ফেলা হবে এ কথা কাউকে বললে। মেয়ে কাউকে কিছু জানায়নি এই ভয়ে।

ফারহানা আফরোজ চমন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের স্ত্রীরোগ ও প্রসূতিবিদ্যা বিভাগের চিকিৎসক বলেন, ‘১১ বছরের মেয়ে অন্তঃসত্ত্বা হতে পারে। তবে মেয়েটির ক্ষেত্রে যা ঘটেছে, সেটা খুবই পীড়াদায়ক।’

আবুল কালাম মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেন, খুবই দুঃখজনক ঘটনাটি। থানায় মেয়ের মা বাদী হয়ে করেছেন মামলা।

পালিয়ে গেছেন, আসামি করা হয়েছে যাঁকে। অভিযান চলছে তাঁকে আটক করতে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে